বুধবার, ২৬ জানুয়ারী ২০২২, ০৬:১২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
আত্মসমর্পণকারী ইউনুছের বাড়ি থেকে ইয়াবা ও ফেন্সিডিল উদ্ধার!_ নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ফয়েজুল ইসলাম মেম্বার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিপাত যাক,বাঙালি জাতি মুক্তি পাক এই স্লোগান নিয়ে বিশাল মানববন্ধন প্রেম করে তুমি প্রতিশোধ নিতে চেয়েছো?প্রয়াত যুবতীর চিঠি! ওব্যাট-প্রান্তিক লার্নিং সেন্টারের শিক্ষার্থীরা পেলো শীতবস্ত্র |বাংলাদেশ দিগন্ত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে পেকুয়ায় সাংবাদিকদের মানবন্ধন |বাংলাদেশ দিগন্ত রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসনের দাবিতে টেকনাফে ছাত্রলীগের মানববন্ধন টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে মোহাম্মদ ইসমাইলের মেয়র প্রার্থীতা বৈধ করেছেন হাইকোর্ট মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী খোকনের নির্বাচনি অফিস উদ্বোধন হোয়াইক্যংয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন |বাংলাদেশ দিগন্ত

আনচারীর বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা;পিবিআই’তে তদন্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা:
  • আপডেট টাইম : বুধবার, ১ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৭২ বার পঠিত

আমাকে ইসলামাবাদের নূর মোহাম্মদ আনচারি বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে সী বীচে বেড়াতে নিয়ে যায়। পরবর্তীতে রাত আনুমানিক ৮টার দিকে হোটেল সমুদ্র কান্তার ১০৫নং কক্ষে নিয়ে আমার ইচ্ছার বিরুদ্ধে ধর্ষণ করে।

কক্সবাজার ঈদগাঁও ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ৮নং ওয়ার্ডের আউলিয়াবাদ এলাকার মৃত এজাহার মিয়ার ছেলে নূর মোহাম্মদ আনচারি (৩৮)এর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছে কুতুবদিয়া এলাকার আব্দুল মালেকের কন্যা জুলেখা বেগম (২৪) নামের এক নারী। মামলায় আনচারির সাথে আসামী করা হয়েছে চৌফলদণ্ডী খোনকারখিল এলাকার মৃত অঝু খাঁর ছেলে নূরুল আবছার (২৭) নামের অপর এক ব্যক্তিকে।

মামলার হলফনামা সূত্রে জানা যায়, গত ২৭/০৮/২১ইং রাত আনুমানিক ৮টার দিকে কক্সবাজার হোটেল মোটেল জোনের সমুদ্র কান্তার নামের এক হোটেলের ১০৫নং কক্ষে প্রথমে নূর মোহাম্মদ আনচারি ও তার সহযোগী নূরুল আবছার পালাক্রমে রাতভর ধর্ষণ করে পরদিন সকাল আনুমানিক নয়টার দিকে রাস্তায় ফেলে রেখে পালিয়ে যায়। পরবর্তীতে হাসপাতালে ভর্তি হয়ে যথাযথ চিকিৎসা শেষে ৩১/০৮/২০২১ইং তারিখ সকাল ১০টায় কক্সবাজার জেলা জজ আদালতের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনাল নং ১এ বাদিনী স্ব শরীরে হাজির হয়ে মামলাটি দায়ের করে।

বিজ্ঞ আদালত মামলা (মামলা নং ২১৬/২১) আমলে নিয়ে পিবিআইকে আগামী ১২/১০/২০২১ইং তারিখ তদন্ত প্রতিবেদন দাখিল করার জন্য আদেশ দেন।

মামলায় বাদিনীসহ ৫জনকে স্বাক্ষী করা হয়েছে। যথাক্রমে (১) বাদিনী, (২) হোটেল ম্যানেজার নজিরুল ইসলাম, (৩) খরুলিয়া চরপাড়ার মোহাম্মদ আলীর ছেলে বাবুল, (৪) কলাতলীর ছৈয়দ আকবরের ছেলে আইয়ুব ও (৫) নুনিয়া ছড়ার ভুলু মিয়ার মেয়ে জোছনা আক্তার।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs
error: Content is protected !!