রবিবার, ২৯ জানুয়ারী ২০২৩, ০৬:১৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
টানটান উত্তেজনায় শেষ হল শেখ রাসেল গোল্ডকাপ;বিজয়ীদের পুরষ্কার তুলে দেন অতিথিগণ টেকনাফে মুক্তি কক্সবাজার কর্তৃক বাস্তবায়িত প্রকল্পের উপকারভোগীদের মধ্যে প্রশিক্ষণ পরবর্তী নগদ অর্থ সহায়তা বিতরণ টেকনাফে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন অভাবনীয় সফলতায় মেম্বার এনামের প্রতিষ্ঠিত বালিকা মাদ্রাসা টেকনাফে “অক্সফাম” কর্তৃক ভাউচার প্রোগ্রামের মাধ্যমে বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ “মুক্তি” কক্সবাজার কর্তৃক উপকারভোগীদের মাঝে কৃষি উপকরণ ও নগদ টাকা বিতরণ “বাংলাদেশ সমতা ঐক্য পরিষদ’র কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী শাখার তৃতীয় মেয়াদে কমিটি গঠিত “মানবাধিকার দিবস” উপলক্ষে টেকনাফে কোস্ট ফাউন্ডেশনের সেমিনার রামুতে সূর্যের হাসি যুব সংঘ ও প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে এসএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা মুক্তি” কক্সবাজার কর্তৃক টেকনাফে আন্তর্জাতিক ও জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালিত

ঘর দেয়ার নামে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছেন মির্জাগঞ্জের ইউপি মেম্বার পবিত্র চন্দ্র |বাংলাদেশ দিগন্ত

রাজিব হোসেন সুজন,পটুয়াখালী:
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ১৩ জুলাই, ২০২০
  • ৫৭৯ বার পঠিত

পটুয়াখালী মির্জাগঞ্জ উপজেলার ৫নং কাকড়াবুনিয়া ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য পবিত্র চন্দ্রের বিরুদ্বে সরকারি ঘর দেয়ার নামে অর্থ হাতিয়ে নেয়ার অভিযোগের প্রমান পাওয়া গেছে।এছাড়াও নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক অনেকে বলেন, বিদ্যুৎ, টিউবওয়েল, বয়স্ক ভাতা, ভিজিডিকার্ড বাবদ বিভিন্ন সময়ে অর্থ হাতিয়ে নিয়েছে এই মেম্বার।

সরেজমিনে অনুসন্ধানে গিয়ে গতকাল রোববার ভুক্তভোগী অসহায় গরীব বিউটি বেগমের সাথে কথা বললে তিনি জানান, প্রায় এক বছর হলো পবিত্র মেম্বর সরকারি ঘর দেয়ার জন্য আমার কাছ থেকে বিশ হাজার টাকা নিয়েছেন।এখন আবার ত্রিশ হাজার টাকা চাচ্ছেন। টাকা না দিলে ঘর ও দিবে না আর টাকা ও ফেরত দিবে না। এছাড়াও প্রতিবেশী একজন বিধবার কাছ থেকে বয়স্ক ভাতা দেয়ার নামে ৪ হাজার টাকা হাতিয়ে নিয়েছে বলে জানাগেছে।

এ ব্যাপারে অভিযুক্ত ইউপি সদস্য পবিত্র চন্দ্রের সাথে সরাসরি দেখা করে ঘরের জন্য টাকা নেয়ার বিষয় জানতে চাইলে, তিনি প্রথমে অশ্বিকার করেন এবং অভিযোগ কারির সামনে কথা প্রমান করতে চান।সংবাদ কর্মীদের নিয়ে ভুক্তভোগী বিউটি বেগমের বাড়িতে গেলে উপস্থিত লোকের সামনে ও বিউটি বেগম টাকা দেয়ার প্রমাণ মিলে।বিষয়টি কাকড়াবুনিয়া ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গীর আলমকে অবহিত করতে তার মুঠোফোন নাম্বারে একাধিক বার কল করলেও যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি।

এবিষয়ে মির্জাগন্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার সরোয়ার হোসেন কে অবহিত করা হলে তিনি বলেন, এধরণের কোন অভিযোগ আমার জানা নেই। তবে আমরা অভিযোগ পেলে অবশ্যই আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করব বলে জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs
error: Content is protected !!