মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ০৯:৪৩ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আত্মসমর্পণকারী ইউনুছের বাড়ি থেকে ইয়াবা ও ফেন্সিডিল উদ্ধার!_ নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ফয়েজুল ইসলাম মেম্বার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিপাত যাক,বাঙালি জাতি মুক্তি পাক এই স্লোগান নিয়ে বিশাল মানববন্ধন প্রেম করে তুমি প্রতিশোধ নিতে চেয়েছো?প্রয়াত যুবতীর চিঠি! ওব্যাট-প্রান্তিক লার্নিং সেন্টারের শিক্ষার্থীরা পেলো শীতবস্ত্র |বাংলাদেশ দিগন্ত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে পেকুয়ায় সাংবাদিকদের মানবন্ধন |বাংলাদেশ দিগন্ত রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসনের দাবিতে টেকনাফে ছাত্রলীগের মানববন্ধন টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে মোহাম্মদ ইসমাইলের মেয়র প্রার্থীতা বৈধ করেছেন হাইকোর্ট মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী খোকনের নির্বাচনি অফিস উদ্বোধন হোয়াইক্যংয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন |বাংলাদেশ দিগন্ত

টেকনাফে ইউপিতে নির্বাচনি আচরণ বিধি মানছেন না কেউ |বাংলাদেশ দিগন্ত

নিজস্ব প্রতিবেদক:
  • আপডেট টাইম : সোমবার, ২৯ মার্চ, ২০২১
  • ২৫৮ বার পঠিত

টেকনাফ উপজেলার পাঁচ ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে আগামী ১১ই এপ্রিল । আগামী ১১ই এপ্রিল এর নির্বাচন উপলক্ষ্যে পাঁচ ইউনিয়নের চেয়ারম্যান, মেম্বার,ও মহিলা মেম্বার পদপ্রার্থীরা শুরু করেছেন তাদের ব্যাপক নির্বাচনী প্রচারণা। নির্বাচন কমিশন থেকে আচরণ বিধি ঠিক করে দিলেও প্রার্থীরা মানছেন না এসব আচরণ বিধি ।নির্বাচনী আচরণ বিধিকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখিয়ে প্রার্থীদের সমর্থকেরা চালাচ্ছে তাদের ব্যাপক প্রচারণা । প্রার্থীদের আচরণ বিধি লঙ্গণের অবস্থা দেখে হতাশ হয়ে পড়েছেন শিক্ষিত সমাজ ও সচেতন মহল । অভিযোগ ওঠেছে ,ইউপি নির্বাচনে পাঁচ ইউনিয়নের অনেক চেয়ারম্যান,মেম্বার ও মহিলা মেম্বার পদপ্রার্থীরা বিশাল সম্পদশালী হওয়ার কারণে নির্বাচনী আচরণ বিধিকে বৃদ্ধা আঙ্গুল দেখাচ্ছে এবং মানছেন না কোনো বিধি নিষেধ।বিশেষ করে মাদক কারবারি ও জেল ফেরত প্রার্থীরা আচরণ বিধির তোয়াক্কা-ই করছে না এবং এসব অবৈধ কালো টাকা ওয়ালা প্রার্থীদের কোনো ভাবে দমিয়ে রাখা যাচ্ছে না বলেও জানান শিক্ষিত সমাজ । টাকার বিনিময়ে ভোটের মাঠ নষ্ট করছে ও সাধারণ ভোটারদের কাছ থেকে টাকার বিনিময়ে ভোট নেয়ার চেষ্টা চালাছে বলেও লোকমুখে শুনা যাচ্ছে । এসব মাদক কারবারি ও অবৈধ সম্পদশালী প্রার্থীরা যেনো কোনো ভাবেই ভোটের মাঠ নষ্ট করতে না পারে সেদিকে প্রশাসনের কঠোর নজরদারি রাখার দাবি জানিয়েছেন সৎ,শিক্ষিত,যোগ্য, প্রতিদ্বন্ধী প্রার্থীগণ । মাদক কারবারিরা টাকার বিনিময়ে ভোটের মাঠ দখল করে বিজয় হয়ে পুরোদমে তাদের মাদক ব্যবসা সচল রাখতেই নির্বাচন করছেন বলেও অভিযোগ ওঠেছে । মেম্বার চেয়ারম্যান হওয়া মাদক কারবারি প্রার্থীদের মুখ্য বিষয় নয় বলেও মন্তব্য করছেন অনেকে । মূলত এসব মাদকডন প্রার্থীদের মূখ্য বিষয় হলো মাদক ব্যবসা সচল রাখা ও আইনের কবল থেকে যেনো নিজেকে বাঁচিয়ে রাখতে পারে সেই অপকৌশল বলে দাবি করেন অনেকে । বিশেষ করে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ৫ নাম্বার ওয়ার্ডের আব্দুল জলিল ও টেকনাফ সদর ৮ নং এনামুল হক মেম্বোরের ওয়ার্ড,সাবরাং ইউপির শরীর মেম্বারের ওয়ার্ড হ্নীলা ইউপির রঙ্গীখালীর জামাল মেম্বার ও গিয়াস বাহিনীর গিয়াসের ওয়ার্ড,হ্নীলা ইউপির ৬নাম্বার ওয়ার্ডসহ কয়েকটি ওয়ার্ডে এসব কালো টাকার মালিকদের রাম রাজত্ব চলছে বলে অভিযোগ ওঠেছে।
উপরোল্লখিত স্থানগুলো প্রশাসনের নজরে রাখা অতীব জরুরী বলে মনে করেন ধারণ ভোটাররা ।
এবিষয়ে টেকনাফ উপজেলার নির্বাচন কমিশন বেদারুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন ,আমরা প্রত্যেক এলাকায় মাইকিং করে প্রার্থীদের সতর্ক করতেছি, তারপরেও যদি কেউ নির্বাচনী আচরণ বিধি না মানলে তাদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে এবং আমার সাথে মাঠে নির্বাহী মেজিষ্ট্রেট থাকবে সাথে সাথে আইনি প্রদেক্ষেপ গ্রহণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs
error: Content is protected !!