মঙ্গলবার, ১৮ জানুয়ারী ২০২২, ১১:০৫ পূর্বাহ্ন
শিরোনাম :
আত্মসমর্পণকারী ইউনুছের বাড়ি থেকে ইয়াবা ও ফেন্সিডিল উদ্ধার!_ নতুন বছরের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন ফয়েজুল ইসলাম মেম্বার রোহিঙ্গা সন্ত্রাসী নিপাত যাক,বাঙালি জাতি মুক্তি পাক এই স্লোগান নিয়ে বিশাল মানববন্ধন প্রেম করে তুমি প্রতিশোধ নিতে চেয়েছো?প্রয়াত যুবতীর চিঠি! ওব্যাট-প্রান্তিক লার্নিং সেন্টারের শিক্ষার্থীরা পেলো শীতবস্ত্র |বাংলাদেশ দিগন্ত মিথ্যা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে পেকুয়ায় সাংবাদিকদের মানবন্ধন |বাংলাদেশ দিগন্ত রোহিঙ্গাদের দ্রুত প্রত্যাবাসনের দাবিতে টেকনাফে ছাত্রলীগের মানববন্ধন টেকনাফ পৌরসভা নির্বাচনে মোহাম্মদ ইসমাইলের মেয়র প্রার্থীতা বৈধ করেছেন হাইকোর্ট মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী খোকনের নির্বাচনি অফিস উদ্বোধন হোয়াইক্যংয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান-মেম্বারদের সংবর্ধনা অনুষ্ঠান সম্পন্ন |বাংলাদেশ দিগন্ত

টেকনাফ-সেন্টমাটিন নৌপথ ৪০ সাঁতারু |বাংলাদেশ দিগন্ত

মুহাম্মদ শেখ রাসেল, টেকনাফ:
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১ ডিসেম্বর, ২০২০
  • ২৫৮ বার পঠিত

কক্সবাজার টেকনাফ বঙ্গোপসাগরে ফরচুন বাংলা চ্যানেল সাঁতার–২০২০ সোমবার এবার সর্বোচ্চ ৪৩ সাঁতারু অংশ নিয়েছেন। এতে সফল ভাবে পাড়ি দিয়েছেন ৪০ জন সাঁতারু। ৩ জন সাঁতারু সফল ভাবে পাড়ি দিতে পারেননি। ১ম বিজয়ী হলেন মোঃ রাব্বি রহমান(১৩) তিনি পৌঁছান ৩ টা ২০ মিনিটে, ২য় বিজয়ী হলেন সাইফুল ইসলাম তিনি পৌঁছান ৩ টা৩ ৩১ মিনিটে, ৩য় বিজয়ী হলেন সোজা মওলা তিনি পৌঁছান ৩ টা ৩৫ মিনিটের সময়।

৩০ নভেম্বর সোমবার সকাল নয়টায় কক্সবাজারের টেকনাফ উপজেলার শাহ্‌ পরীর দ্বীপ জেটি থেকে এই সাঁতার শুরু হয়েছে । টেকনাফ-সেন্টমাটিন নৌপথের স্রোত ধারার নাম বাংলা চ্যানেল। বঙ্গোপসাগরের বাংলা চ্যানেলের ১৬ কিলোমিটার পথ সাঁতরে সাঁতারুদের পৌঁছাতে হবে সেন্ট মার্টিন দ্বীপের জেটিতে। ১৫তম বাংলা চ্যানেল সাঁতারের আয়োজক ষড়জ অ্যাডভেঞ্চার ও এক্সট্রিম বাংলা।

গত মার্চে এই সাঁতার আয়োজনের কথা ছিল। করোনা পরিস্থিতিতে তখন সেটি স্থগিত হয়ে যায়। ষড়জ অ্যাডভেঞ্চারের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা লিপটন সরকার জানান, চ্যানেল সাঁতারের আন্তর্জাতিক নিয়ম মেনে এই আয়োজন করা হয়েছে। সাঁতারুরা ফ্রি হ্যান্ড সুইমিং করে। নিরাপত্তার জন্য প্রত্যেক সাঁতারুর সঙ্গে একটি করে উদ্ধারকারী নৌকা ছিল। এ ছাড়া বাংলাদেশ কোস্ট গার্ডের সার্ভিস বোট, জরুরি নৌকা ও ডুবুরিরা ছিল।

এবারের বাংলা চ্যানেল সাঁতারে বেশ কিছু রেকর্ড হতে পারে বলে ধারণা করা হয়েছে ।

৬৮ বছর বয়সী সাঁতারু ক্ষিতিন্দ্র চন্দ্র বৈষ্য এই সাঁতারে অংশ নিয়েছেন। তবে তিনি এবার সাঁতারে সফল হতে পারেননি। যদি সফল হতেন তা হলে তিনিই হতেন বাংলা চ্যানেল পাড়ি দেওয়া সবচেয়ে বয়স্ক সাঁতারু। এখন পর্যন্ত এ রেকর্ডের অধিকারী ঢাকার সাঁতারু মিজানুর রহমান। তিনি ২০১৯ সালে ৬৭ বছর বয়সে এই চ্যানেল পাড়ি দিয়েছিলেন। এবার তিনি অংশ নেননি।

২০০৬ সাল থেকে গত বছর পর্যন্ত টানা ১৪ বার এই চ্যানেল পাড়ি দেন লিপটন সরকার। এবারসহ পাড়ি দিলেন ১৫ বারের রেকর্ড। এবারের ৪৩ সাঁতারুর মধ্যে ১ জন বিদেশি, ২ জন নারী ও ২ জন পুলিশ কর্মকর্তা। গত বছর ৩১ সাঁতারু বাংলা চ্যানেল পাড়ি দেন।

সাঁতারুরা সেন্ট মার্টিন দ্বীপে অবস্থান করে শনিবার থেকে সাগরে অনুশীলন করেছিলেন।
গত রোববার সাঁতারুরা সেন্ট মার্টিনে আনুষ্ঠানিক ফটোসেশনে অংশ নেন।

এবারের বাংলা চ্যানেল সাঁতারের সহ–আয়োজক বাংলাদেশ পর্যটন করপোরেশন ও পর্যটন বোর্ড, প্রধান পৃষ্ঠপোষক ফরচুন গ্রুপ, পৃষ্ঠপোষক ভিসা থিং ও এনসিসি ব্যাংক, অংশীদার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়, স্টুডিও ঢাকা ও ষড়জ এবং রেসকিউ পার্টনার হিসেবে আছে বাংলাদেশ কোস্ট গার্ড।

অ্যাডভেঞ্চার গুরুখ্যাত প্রয়াত কাজী হামিদুল হক সমুদ্র সাঁতারের উপযোগী বঙ্গোপসাগরের এই বাংলা চ্যানেল আবিষ্কার করেন। ২০০৬ সালে প্রথমবারের বাংলা চ্যানেল সাঁতরে পাড়ি দেন লিপটন সরকার, ফজলুল কবীর ও সালমান সাঈদ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs
error: Content is protected !!