শুক্রবার, ০৩ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ১২:৫৮ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
টানটান উত্তেজনায় শেষ হল শেখ রাসেল গোল্ডকাপ;বিজয়ীদের পুরষ্কার তুলে দেন অতিথিগণ টেকনাফে মুক্তি কক্সবাজার কর্তৃক বাস্তবায়িত প্রকল্পের উপকারভোগীদের মধ্যে প্রশিক্ষণ পরবর্তী নগদ অর্থ সহায়তা বিতরণ টেকনাফে ছাত্রলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উদযাপন অভাবনীয় সফলতায় মেম্বার এনামের প্রতিষ্ঠিত বালিকা মাদ্রাসা টেকনাফে “অক্সফাম” কর্তৃক ভাউচার প্রোগ্রামের মাধ্যমে বিভিন্ন সামগ্রী বিতরণ “মুক্তি” কক্সবাজার কর্তৃক উপকারভোগীদের মাঝে কৃষি উপকরণ ও নগদ টাকা বিতরণ “বাংলাদেশ সমতা ঐক্য পরিষদ’র কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী শাখার তৃতীয় মেয়াদে কমিটি গঠিত “মানবাধিকার দিবস” উপলক্ষে টেকনাফে কোস্ট ফাউন্ডেশনের সেমিনার রামুতে সূর্যের হাসি যুব সংঘ ও প্রবাসী ফোরামের উদ্যোগে এসএসসিতে জিপিএ-৫ প্রাপ্তদের সংবর্ধনা মুক্তি” কক্সবাজার কর্তৃক টেকনাফে আন্তর্জাতিক ও জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালিত

নওগাঁয় ক্লান্তিহীন এসপি মান্নানের করোনা ভাইরাসের সময়েও ব্যতিক্রম কার্যক্রম

হুমায়ুন আহমদ
  • আপডেট টাইম : বৃহস্পতিবার, ১৬ জুলাই, ২০২০
  • ৫৮২ বার পঠিত

করোনা ভাইরাস কালীন সময়ে দিনরাত সরকারের দেয়া দায়িত্ব ও সামাজিক দায়বদ্ধতায় থেকে কাজ করে যাচ্ছেন ক্লান্তিহীন নওগাঁর পুলিশ সুপার (এসপি) প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়া বিপিএম। পুলিশ সুপারের এই কার্যক্রম জেলার কর্মরত গণমাধ্যমকর্মীরা যেমন প্রচার করেছে তেমনি জেলা পুলিশ সুপারের সামাজিক মাধ্যমে তুলে ধরায় প্রতিদিন নওগাঁবাসি স্বাগত জানিয়েছেন।
নওগাঁবাসি মনে করছেন, করোনা ভাইরাসের সময়ে সরকারের দেয়া দায়িত্ব, সামাজিক দায়বদ্ধতায় নিজের নিরাপত্তা বজার রেখে এসপি যে ভাবে ক্লান্তিহীন কাজ করেছেন তা প্রসংশনীয়। তার ব্যক্তিত্ব ও কাজের মাধ্যমে নিজেকে নিয়ে গেছে অনেক দুরে।
কৃষি প্রধান জেলা নওগাঁয় ধান ও চাল উৎপাদনে সারা দেশের মধ্যে অন্যমত জেলা হিসেবে পরিচিত। চলতি ইরি-বোরো মৌসুমে প্রায় ১ লাখ ৮৩ হাজার হেক্টর জমিতে ধান চাষ করা হয়। আবহাওয়া অনুকূলে থাকায় ধানের বাম্পার ফলনও হয়। কৃষকরা যখন কাটা মাড়াই শুরু করবে সে সময় করোনা সারা দেশে ছড়িয়ে পরে। শ্রমিক সংকট নিয়ে কৃষকরা দুশ্চিন্তাগ্রস্থ্য ও দিশেহারা হয়ে পরেন। সে সময় কৃষকরা যাতে সুন্দর ভাবে দ্রুত ধান ঘরে তুলতে পারেন সে জন্যে সরকারি ও খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার নির্দেশণা প্রদান করেন। এরপর জেলা প্রশাসনের পাশাপাশি নওগাঁ পুলিশ সুপার প্রকৌশলী আবদুল মান্নান মিয়ার বিভিন্ন জেলায় ধান কাটা শ্রমিকদের সাথে যোগাযোগ করেন। এরপর এসপির সহযোগিতায় ১১ থানায় পুলিশের মাধ্যমে দিনাজপুর, পাবনা, রংপুর, নীলফামারী, লালমনিরহাট, কুড়িগ্রাম, কুষ্টিয়া, চাঁপাইনবাবগঞ্জ, গাইবান্দাসহ বিভিন্ন জেলা থেকে নওগাঁয় আসা ধান কাটার শ্রমিকদের শুকনো খাবার, মাস্ক, সাবানসহ স্বাস্থ্য সুরক্ষার প্রয়োজনীয় দ্রব্যাদি দিয়ে সহযোগিতা করেন। ফলে কৃষি বিভাগে লক্ষ্যমাত্রা ৭ লাখ ৩২ হাজার মেট্রিক টন চাল থাকলেও লক্ষ্যমাত্রার বেশি ১৮ লাখ মেট্রিক টন চাল অর্থাৎ সাড়ে লাখ মেট্রিকটন চাল সংরক্ষণ করা সম্ভব হয়েছে।
চলতি আম মৌসুমে সারাদেশের মধ্যে নওগাঁ আম উৎপাদনে শীর্ষে রয়েছে। আমের রাজধানী চাঁপাইনবাবগঞ্জে পরিচিত হলেও সেখানে মাত্র আড়াই লাখ মেট্রিকটন উৎপাদন হয়েছে। নওগাঁয় প্রায় ২৫ হাজার হেক্টর জমিতে ৪ লাখ ২০ হাজার মেট্রিক টন আম উৎপাদন হয়েছে।
নওগাঁয় চলতি মৌসুমে প্রায় এক হাজার কোটি টাকার আমের বাণিজ্য হওয়ার আশা করেন আম চাষ।

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs
error: Content is protected !!