শুক্রবার, ২৭ মে ২০২২, ০৬:৫৫ অপরাহ্ন

পর্যটন নগরী কক্সবাজার কি লুটপাটের শহর?|বাংলাদেশ দিগন্ত

জামাল উদ্দীন।
  • আপডেট টাইম : শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৯৯ বার পঠিত

পর্যটন নগরী কক্সবাজার কি লুটপাটের শহর?

পৃথিবীর দীর্ঘতম সমুদ্রসৈকতের কারনে দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ভ্রমণ পিপাসু মানুষের কাছে কক্সবাজার প্রথম পছন্দের শহর। ২০২০ সালে করোনা মহামারীর কারনে পর্যটক না অাসায় এখানকার পর্যটন ব্যবসায়ীদের লোকসানের পরিমানটা অন্যান্য বছরের তুলনায় অনেক বেশি ছিল। কিন্তু সম্প্রতি সেই মহামারীর প্রকোপ তুলনামূলক কমে যাওয়ায় পর্যটক অাসতে শুরু করেছে। এতে পর্যটন ব্যবসায়ীরাও বিগত বছরের লোকসান পুষিয়ে নিতে পারবেন বলে অাশাবাদী। কিন্তু সেই লোকসান পুষিয়ে নিতে গিয়ে যদি পর্যটকদের উপর জুলুম করা হয় তাহলে সেটাকে অার যা-ই হউক অন্তত ব্যবসা বলা যাবেনা।

টানা তিনদিন ছুটি থাকায় অাজ কক্সবাজারে পর্যটকের ঢল নেমেছিল। বিভিন্ন রিপোর্ট থেকে জানা যায়, দেশের বিভিন্ন এলাকা থেকে প্রায় দশ লাখের অধিক পর্যটক এসেছে। ফলে প্রয়োজনের তুলনায় সবকিছু অপ্রতুল হওয়ায় পর্যটক পড়তে হয়েছে নানান ভোগান্তিতে। বিশেষ করে মধ্যবিত্ত এবং নিম্নবিত্ত ফ্যামিলীর পর্যটকদের। অার সেই সুযোগটাকে কাজে লাগিয়ে কক্সবাজারের পর্যটন ব্যবসায়ীরা পর্যটকদের সাথে অমানবিক ও জুলুমী অাচরন করছে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। যেমন;
অাবাসিক হোটেলগুলোতে ৫০০ টাকার রুমের ভাড়া নিচ্ছে ৫০০০ হাজার টাকা! ১০০০ হাজার টাকার রুমের ভাড়া ৭/৮হাজার টাকা! ১৫০০/২০০০ টাকা স্টুডিও এপার্টমেন্ট ১০০০০/১২০০০ টাকা! ফলে অনেক পর্যটক বাধ্য হয়ে খোলা অাকাশের নিচে রাত্রিযাপন করছে! রেস্টুরেন্টগুলোর চিত্র অারো ভয়াবহ! বিষয়গুলো নিয়ে অনেক পর্যটকের বিরূপ মন্তব্যও ফেসবুকে ঘুরপাক খাচ্ছে। একজন লিখেছেন, “কক্সবাজারে বেড়াতে অাসা লোকজনদের প্রত্যেককেই এখানকার ব্যবসায়ীরা বিল গেটস ভাবে!”

পর্যটন ব্যবসায়ীদের জুলুমী ব্যবসার লাগাম টেনে ধরার মত কেউ কি নেই?

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs