মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৫২ অপরাহ্ন
শিরোনাম :
মুক্তি” কক্সবাজার কর্তৃক টেকনাফে আন্তর্জাতিক ও জাতীয় প্রতিবন্ধী দিবস পালিত টেকনাফের নয়াবাজারে ছুরিকাঘাতে শাহ আলম গুরুতর আহত! শারীরিক নির্যাতন ও মিথ্যা মামলায় হয়রানির প্রতিবাদে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে সংবাদ সম্মেলন ভাটারা থানা ছাত্রলীগের সভাপতি পলাশ, সাধারণ সম্পাদক উল্লাস নাফ মেরিট মাল্টিমিডিয়া স্কুলে ক্লাস পার্টি রোহিঙ্গা সেলিম হত্যা মামলায় হ্নীলার বাবুল মেম্বার গ্রেপ্তার টেকনাফে‘নগদকর্মী’কে হত্যার অভিযোগে ৮ জনের বিরুদ্ধে মামলা টেকনাফে এক ব্যক্তির লাশ উদ্ধার টেকনাফ হ্নীলার মহিলা মাদ্রাসার বিরুদ্ধে মিথ্যা অপপ্রচারের প্রতিবাদ টেকনাফে কুঁড়ে ঘরে বসবাস করলেও,বিধবার কপালে জুটেনি প্রধানমন্ত্রীর উপহার “ঘর’ |বাংলাদেশ দিগন্ত

বীর মুক্তিযোদ্ধার সন্তান কে বাঁচাতে এগিয়ে আসার আহবান |বাংলাদেশ দিগন্ত

নিজস্ব সংবাদদাতা:
  • আপডেট টাইম : মঙ্গলবার, ১৬ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৬৪৯ বার পঠিত
 মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধার একমাত্র সন্তান মোহাম্মদ আলী জুয়েল কে এগিয়ে আসার আহবান জানালেন মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধার বিধবা স্ত্রী রোকেয়া বেগম।চট্টগ্রাম জেলার সন্দ্বীপ উপজেলার গাছুয়া ইউনিয়নে মোহাম্মদ আলী জুয়েলের বাড়ি।হামিদ দর্জির বাড়ির মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা মুস্তাফিজুর রহমানের ও রোকেয়া বেগমের একমাত্র সন্তান মোহাম্মদ আলী জুয়েল।
উল্লেখ্য যে,গত ২৩শে জানুয়ারী হঠাৎ করে স্ট্রক করেন মোহাম্মদ আলী জুয়েল।সন্দ্বীপ গাছুয়া মেডিকেল নিয়ে গেলে কর্তব্যরত ডাক্তার তাকে চট্টগ্রামে নিয়ে যেতে বলে।চট্টগ্রামের একটা প্রাইভেট ক্লিনিকে তার চিকিৎসা চলছে গত ২৩শে জানুয়ারী থেকে এখন পর্যন্ত।আরো ৫০/৬০দিন থাকতে হবে বলে দাবি করেন ডাক্তার।স্ট্রক করার পরে এক হাত ও এক পা এখনো অচল।সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে,মৃত বীর মুক্তিযোদ্ধা মুস্তাফিজুর রহমান ও রোকেয়া বেগমের একমাত্র সন্তান হাসপাতালে চিকিৎসা প্রায় বন্ধ হয়ে আছে টাকার অভাবে।
দীর্ঘ ২৩ দিন ধরে মোহাম্মদ আলী জুয়েলের মামা চিকিৎসা খরচ চালিয়ে আসছেন।এই পর্যায়ে এসে তিনিও প্রায় ব্যর্থ হয়ে আছেন।এমতাবস্থায় মোহাম্মদ আলী জুয়েলের মা রোকেয়া বেগম দেশবাসীর কাছে দোয়া ও আর্থিক সহযোগিতা চেয়েছেন।
রোকেয়া বেগম আরো বলেন আমার স্বামী একজন মুক্তিযোদ্ধা।বর্তমানে তিনি আমাদের মাঝে নেই।আমার একমাত্র সন্তান হাসপাতালে চিকিৎসার অভাবে পড়ে আছে তাই আমি দেশবাসীর কাছে দোয়া ও আর্থিক সাহায্য কামনা করছি।তাছাড়া আমাদের কোন ধন-সম্পদ অথবা জায়গা জমিও নেই যে বিক্রি করে একমাত্র সন্তানের চিকিৎসা চালিয়ে যেতে পারবো।
এদিকে মোহাম্মদ আলী জুয়েলের সাথে কথা বলার চেষ্টা করে হলেও তিনি কথা বলতে পারছেন না।ইশারায় ছাড়া কথা বলতে পারছেন।ডাক্তারের সাথে কথা বলে জানা যায় আরো ৫০/৬০দিন থ্যারাপি চালিয়ে যেতে হবে।এখন দৈনিক ২০০০টাকা বিল আসে বলে জানা যায়।আসুন আমরা যার যার অবস্থান থেকে এই মুক্তিযোদ্ধার সন্তানকে সহযোগিতা করি ও তার পরিবারের পাশে দাঁড়ায়।
#বিকাশ পারসোনাল নাম্বার-০১৬১৫-৫০৯১৪৭

নিউজটি শেয়ার করুন

এ জাতীয় আরো খবর..
এই ওয়েবসাইটের লেখা ও ছবি অনুমতি ছাড়া কোথাও প্রকাশ করা সম্পূর্ণ বেআইনি।
Developed By Bangla Webs
error: Content is protected !!