ঢাকা ০৯:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৩০ মে ২০২৪, ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

মির্জা ফখরুল বলেন ‘উস্কানি’ চলছে, মঞ্চ বানাচ্ছে আওয়ামী লীগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৪৪:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর ২০২৩ ১১১ বার পড়া হয়েছে

 

হেলাল উদ্দিন বার্তা সম্পাদক দৈনিক বাংলাদেশ দিগন্ত
বিএনপি পার্টি অফিসের সামনে দলের পতাকা হাতে একজন কর্মীছবির উৎস,
২৮শে অক্টোবর মহাসমাবেশ ঘিরে বিএনপি পার্টি অফিসের সামনে দলের পতাকা হাতে একজন কর্মী

ঢাকায় ২৮শে অক্টোবর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের সমাবেশ ঘিরে রাজনৈতিক উত্তেজনা ও বাদানুবাদ অব্যাহত আছে। শনিবার নয়া পল্টনে নিজেদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মহাসমাবেশের ঘোষণা দিয়ে রেখেছে বিএনপি। যদিও শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত সেখানে সমাবেশের অনুমতি তারা পায়নি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ বা ডিএমপির কাছ থেকে।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগও একই দিনে পাল্টা সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বায়তুল মোকাররমের সামনে। এই দুটি দলকেই বিকল্প ভেন্যুর প্রস্তাব দিতে বলে ডিএমপি। কিন্তু আওয়ামী লীগ ও বিএনপি চিঠি দিয়ে জানায় তাদের পক্ষে সমাবেশের ভেন্যু পরিবর্তন সম্ভব নয়।

সকালে পল্টন এলাকা থেকে বিবিসি বাংলার সংবাদদাতা নাগিব বাহার জানান, বিএনপি অফিসের সামনে অল্প কিছু মানুষ জড়ো থাকলেও সেখানে এখনো সমাবেশের প্রস্তুতি নিতে দেখা যায়নি।

সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজও শুরু করেনি বিএনপি। দুপরের পর থেকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপি নেতা-কর্মীদের ভিড় বাড়তে থাকে। যদিও সকালের দিকে পার্টি অফিসের ভেতর থেকে মাইকে বারবার নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে রাস্তায় ভিড় না জমাতে।

তবে ভিন্ন চিত্র বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটে। সেখানে সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

এদিকে সকাল ১১টায় নয়া পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জরুরী সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি। সেখানে সাংবাদিকদের সামনে আবারও নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মি. আলমগীর বলেন, যদি সরকার ও ক্ষমতাসীন দল ‘অত্যাচার নিপীড়ন ও বাড়াবাড়ি’ করে তাহলে সে দায়-দায়িত্ব তাদেরই নিতে হবে।

তিনি অভিযোগ করেন, ২৮শে অক্টোবর সমাবেশকে ঘিরে ক্ষমতাসীনদের তরফ থেকে ‘সংঘাতে উস্কানি’ দেয়া হচ্ছে।

“আমরা আগামীকাল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণভাবে আমাদের মহাসমাবেশ করতে চাই। এখনো ডিএমপি থেকে আমরা চিঠি পাইনি। তবে আশা করছি তারা আমাদের মহাসমাবেশে সহযোগিতা করবে।”

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা অবশ্য বলছেন বিএনপিকে আন্দোলন করতে কোনো বাধা দেয়া হবে না। তবে আন্দোলন করতে গিয়ে বিশৃঙ্খলা তৈরি করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক অনুষ্ঠান শেষে আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, “আন্দোলন তারা করতে পারে, এটা রাজনৈতিক দলের অধিকার। কিন্তু বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আছে। তারা ব্যবস্থা নেবে।

Facebook Comments Box

মির্জা ফখরুল বলেন ‘উস্কানি’ চলছে, মঞ্চ বানাচ্ছে আওয়ামী লীগ

আপডেট সময় : ০২:৪৪:৩০ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ অক্টোবর ২০২৩

 

হেলাল উদ্দিন বার্তা সম্পাদক দৈনিক বাংলাদেশ দিগন্ত
বিএনপি পার্টি অফিসের সামনে দলের পতাকা হাতে একজন কর্মীছবির উৎস,
২৮শে অক্টোবর মহাসমাবেশ ঘিরে বিএনপি পার্টি অফিসের সামনে দলের পতাকা হাতে একজন কর্মী

ঢাকায় ২৮শে অক্টোবর বিএনপি ও আওয়ামী লীগের সমাবেশ ঘিরে রাজনৈতিক উত্তেজনা ও বাদানুবাদ অব্যাহত আছে। শনিবার নয়া পল্টনে নিজেদের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে মহাসমাবেশের ঘোষণা দিয়ে রেখেছে বিএনপি। যদিও শুক্রবার দুপুর পর্যন্ত সেখানে সমাবেশের অনুমতি তারা পায়নি ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ বা ডিএমপির কাছ থেকে।

অন্যদিকে আওয়ামী লীগও একই দিনে পাল্টা সমাবেশ করার ঘোষণা দিয়েছে বায়তুল মোকাররমের সামনে। এই দুটি দলকেই বিকল্প ভেন্যুর প্রস্তাব দিতে বলে ডিএমপি। কিন্তু আওয়ামী লীগ ও বিএনপি চিঠি দিয়ে জানায় তাদের পক্ষে সমাবেশের ভেন্যু পরিবর্তন সম্ভব নয়।

সকালে পল্টন এলাকা থেকে বিবিসি বাংলার সংবাদদাতা নাগিব বাহার জানান, বিএনপি অফিসের সামনে অল্প কিছু মানুষ জড়ো থাকলেও সেখানে এখনো সমাবেশের প্রস্তুতি নিতে দেখা যায়নি।

সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজও শুরু করেনি বিএনপি। দুপরের পর থেকে দলীয় কার্যালয়ের সামনে বিএনপি নেতা-কর্মীদের ভিড় বাড়তে থাকে। যদিও সকালের দিকে পার্টি অফিসের ভেতর থেকে মাইকে বারবার নির্দেশনা দেয়া হচ্ছে রাস্তায় ভিড় না জমাতে।

তবে ভিন্ন চিত্র বায়তুল মোকাররমের দক্ষিণ গেটে। সেখানে সমাবেশের মঞ্চ তৈরির কাজ শুরু করেছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ।

এদিকে সকাল ১১টায় নয়া পল্টনে কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে জরুরী সংবাদ সম্মেলন করে বিএনপি। সেখানে সাংবাদিকদের সামনে আবারও নিজেদের অবস্থান পরিষ্কার করেন দলটির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মি. আলমগীর বলেন, যদি সরকার ও ক্ষমতাসীন দল ‘অত্যাচার নিপীড়ন ও বাড়াবাড়ি’ করে তাহলে সে দায়-দায়িত্ব তাদেরই নিতে হবে।

তিনি অভিযোগ করেন, ২৮শে অক্টোবর সমাবেশকে ঘিরে ক্ষমতাসীনদের তরফ থেকে ‘সংঘাতে উস্কানি’ দেয়া হচ্ছে।

“আমরা আগামীকাল সম্পূর্ণ শান্তিপূর্ণভাবে আমাদের মহাসমাবেশ করতে চাই। এখনো ডিএমপি থেকে আমরা চিঠি পাইনি। তবে আশা করছি তারা আমাদের মহাসমাবেশে সহযোগিতা করবে।”

ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতারা অবশ্য বলছেন বিএনপিকে আন্দোলন করতে কোনো বাধা দেয়া হবে না। তবে আন্দোলন করতে গিয়ে বিশৃঙ্খলা তৈরি করলে তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানিয়েছেন আইনমন্ত্রী আনিসুল হক।

ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় এক অনুষ্ঠান শেষে আইনমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, “আন্দোলন তারা করতে পারে, এটা রাজনৈতিক দলের অধিকার। কিন্তু বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করলে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী আছে। তারা ব্যবস্থা নেবে।

Facebook Comments Box