ঢাকা ১২:৩৪ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নবীনগর পৌর ভোলাচং ছোট ভাইয়ের সাথে পাওনা টাকার জেড় ধরে বড় ভাইসহ পুরো পরিবারকে গুরুতর আহত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৫০:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩ ৪৭২ বার পড়া হয়েছে

নবীনগর পৌর ভোলাচং ছোট ভাইয়ের সাথে পাওনা টাকার জেড় ধরে বড় ভাইসহ পুরো পরিবারকে গুরুতর আহত

হেলাল উদ্দিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর প্রতিনিধি।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর গত ০১/১১/২৩ ইং রোজ বুধবার সন্ধ্যায় দূর্বৃত্তদের হামলায় গুরুতর আহত হোন ভোলাচং মায়ের দোয়া নার্সারির সত্ত্বাধিকারী হারুন মিয়া(৪৫),তার বৃদ্ধ মা খোদেজা(৭০), বড় বোন শারমিন আক্তার (৪৭), তার শিশু ভাতিজা সইদুর রহমান(৭)।
দূর্বৃত্তদের হামলায় হারুন মিয়ার দুটি হাতই ভেঙে যায় এবং তাছাড়াও সারাশরীরে নানান জায়গায় গুরুতর আঘাত । তার মা বৃদ্ধ খোদেজা বেগমের মাথায় ৬-৭ টি শেলাই করা হয়েছে ও দেহের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম হয়েছে। তাছাড়াও তার বড় বোন ও ভাতিজার দেহের নানান জায়গায় দূর্বৃত্তদের আঘাতে জখম হয়ে যায়।

এ ঘটনায় হারুন মিয়া বলেন,
মূলত আমার ছোট ভাই হুমায়ুনের সাথে কাজিমাবাদ(শালকান্দি) গ্রামের আক্তার মিয়ার টাকা পয়সার লেনদেন ছিল। এ ব্যাপারে ওদের মাঝে কিছুদিন ধরে সমস্যা হচ্ছিল আমি শুধু এতটুকুই জানতাম। আক্তার ও তার বাহিনী আমাকে কেন হামলা করলো তা আমি কিছুই জানিনা। আমার উপর এই সন্ত্রাসী হামলার বিচার চাই ”

এ ঘটনায় তার ছোট ভাই হুমায়ুন বলেন,
আমার কাছ থেকে আক্তার ২,৫০,০০০ টাকা পেতো। সে টাকা ধার দেওয়ার পর থেকে জোর জবরদস্তি করে প্রতিদিন আমার কাছ থেকে ২৫০০ টাকা সুদ নিতো। তাকে সুদ দিতে দিতে আমি নিস্ব। এখন কিছুদিন যাবৎ সুদ দিতে না পারায় সে আমাকে নানানভাবে হুমকি দেয়। পরে তার আসলে টাকা দিয়ে দিতে বলে। আমি গত বাইশ তারিখ ৬৯ হাজার টাকা তাকে পরিশোধ করি এবং তিনমাসের সময় নিই। কিন্তু সে সময়ের আগেই আবার আমাকে আবার জ্বালাতন শুরু করে এবং মঙ্গলবার আমার বড় বোনকে হামলা করে৷ বড় বোনকে হামলা করার আমার বড় বোনের ছেলে অর্থাৎ আমার দুই ভাগনের সাথে ওর কিছু ঝামেলা হয়। ঝামেলার পর সে তার দলবল নিয়ে আমার নিরপরাধ মা, ভাই ও বোনকে মারাত্মক আহত করে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই সকলের কাছে। এদিকে আক্তার হোসেন বলেন আমার কাছ থেকে ২৫০০০০ লক্ষ টাকা নিয়েছে আমি টাকা বুধবারে গিয়ে আমি টাকা চাই তখন তাদের সাথে আমি টাকা নিয়ে তর্ক বিতর্ক সৃষ্টি হয় ।

Facebook Comments Box

নবীনগর পৌর ভোলাচং ছোট ভাইয়ের সাথে পাওনা টাকার জেড় ধরে বড় ভাইসহ পুরো পরিবারকে গুরুতর আহত

আপডেট সময় : ১২:৫০:৩৩ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩

নবীনগর পৌর ভোলাচং ছোট ভাইয়ের সাথে পাওনা টাকার জেড় ধরে বড় ভাইসহ পুরো পরিবারকে গুরুতর আহত

হেলাল উদ্দিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর প্রতিনিধি।
ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর গত ০১/১১/২৩ ইং রোজ বুধবার সন্ধ্যায় দূর্বৃত্তদের হামলায় গুরুতর আহত হোন ভোলাচং মায়ের দোয়া নার্সারির সত্ত্বাধিকারী হারুন মিয়া(৪৫),তার বৃদ্ধ মা খোদেজা(৭০), বড় বোন শারমিন আক্তার (৪৭), তার শিশু ভাতিজা সইদুর রহমান(৭)।
দূর্বৃত্তদের হামলায় হারুন মিয়ার দুটি হাতই ভেঙে যায় এবং তাছাড়াও সারাশরীরে নানান জায়গায় গুরুতর আঘাত । তার মা বৃদ্ধ খোদেজা বেগমের মাথায় ৬-৭ টি শেলাই করা হয়েছে ও দেহের বিভিন্ন স্থানে গুরুতর জখম হয়েছে। তাছাড়াও তার বড় বোন ও ভাতিজার দেহের নানান জায়গায় দূর্বৃত্তদের আঘাতে জখম হয়ে যায়।

এ ঘটনায় হারুন মিয়া বলেন,
মূলত আমার ছোট ভাই হুমায়ুনের সাথে কাজিমাবাদ(শালকান্দি) গ্রামের আক্তার মিয়ার টাকা পয়সার লেনদেন ছিল। এ ব্যাপারে ওদের মাঝে কিছুদিন ধরে সমস্যা হচ্ছিল আমি শুধু এতটুকুই জানতাম। আক্তার ও তার বাহিনী আমাকে কেন হামলা করলো তা আমি কিছুই জানিনা। আমার উপর এই সন্ত্রাসী হামলার বিচার চাই ”

এ ঘটনায় তার ছোট ভাই হুমায়ুন বলেন,
আমার কাছ থেকে আক্তার ২,৫০,০০০ টাকা পেতো। সে টাকা ধার দেওয়ার পর থেকে জোর জবরদস্তি করে প্রতিদিন আমার কাছ থেকে ২৫০০ টাকা সুদ নিতো। তাকে সুদ দিতে দিতে আমি নিস্ব। এখন কিছুদিন যাবৎ সুদ দিতে না পারায় সে আমাকে নানানভাবে হুমকি দেয়। পরে তার আসলে টাকা দিয়ে দিতে বলে। আমি গত বাইশ তারিখ ৬৯ হাজার টাকা তাকে পরিশোধ করি এবং তিনমাসের সময় নিই। কিন্তু সে সময়ের আগেই আবার আমাকে আবার জ্বালাতন শুরু করে এবং মঙ্গলবার আমার বড় বোনকে হামলা করে৷ বড় বোনকে হামলা করার আমার বড় বোনের ছেলে অর্থাৎ আমার দুই ভাগনের সাথে ওর কিছু ঝামেলা হয়। ঝামেলার পর সে তার দলবল নিয়ে আমার নিরপরাধ মা, ভাই ও বোনকে মারাত্মক আহত করে। আমি এ ঘটনার বিচার চাই সকলের কাছে। এদিকে আক্তার হোসেন বলেন আমার কাছ থেকে ২৫০০০০ লক্ষ টাকা নিয়েছে আমি টাকা বুধবারে গিয়ে আমি টাকা চাই তখন তাদের সাথে আমি টাকা নিয়ে তর্ক বিতর্ক সৃষ্টি হয় ।

Facebook Comments Box