ঢাকা ০৫:১২ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ১০ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

ভোলাচং নার্সারি বাড়ির সাথে পাওয়ানা টাকার জেরধরে হুমায়ুন ও তার পরিবারকে নির্মমভাবে আহত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:২৫:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩ ১৮২ বার পড়া হয়েছে

ভোলাচং নার্সারি বাড়ির সাথে পাওয়ানা টাকার জেরধরে হুমায়ুন ও তার পরিবারকে নির্মমভাবে আহত
হেলাল উদ্দিন নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর পৌর ভোলাচং নার্সারীর সাথে হুমায়ুনের বাড়ি, পিতা ফিরোজ মিয়া, হুমায়ুন মিয়া অভিযোগ করেছেন ।নবীনগরে পৌর কাজিমাবাদ ( সালকান্দি) মোঃ আক্তার মিয়ার কাছ থেকে ২৫০০০০ লক্ষ টাকা লাভের উপরে এনে ছিলেন । সে প্রতি মাসেই লাভের টাকা দিয়ে থাকে ২৫০০ হাজার টাকা করে আক্তার মিয়া কে। কিছুদিন আগে হুমায়ুন বলে আমার কাছে যখন টাকা চাই আমি ৬৯ হাজার টাকা দিয়েছি । গত বুধবার আমার বাড়িতে এসে আমার বোনের কাছে টাকা চাই সব টাকা দেওয়ার জন্য কিন্তু আক্তার মিয়া সে মানে নাই । হুমায়ুন বলে তার কিছু লোকজন নিয়ে আমার বোন আমার বাবা আমার মা আমার ভাইকে মারপিট করে আহত করে চলে যান । লেনদেন চাওয়ার ভিতর আমার পরিবারকে নির্মমভাবে আঘাত করেছেন আক্তার মিয়া। । বর্তমান আমার পরিবার চিকিৎসধীন আছেন । আমি এই ঘটনাকে প্রশাসনের কাছে দৃষ্টি আকর্ষণ করছি আমার এই বিষয়টা দেখার জন্য । আজকে রাত্রে আমার বাড়ি থেকে ইজি বাইক রাতে নিয়ে যাই । হুমায়ূনের পিতা বলেন পাওনা টাকা নিয়ে আমার পরিবারকে আক্তার মিয়া এভাবে মারধোর করবে আমার জানা ছিল না । আমি গত মঙ্গলবার গুরু বিক্রি করে যে টাকা আমার কাছে ছিল তারা এই টাকা নিয়ে গেছে। সকলের দাবি তারা নিরীহ বিদায় তাদের উপর অত্যাচার করছেন মোহাম্মদ আক্তার মিয়া । আক্তার বলেন অনেক দিন দরে আমার টাকা চাই তাদের কাছে আমাকে দেইনা তাই আমি গত বুধবার তাদের বাড়ি যাই তখন তাদের সাথে আমার ঝগড়া সৃষ্টি হয়।

Facebook Comments Box

ভোলাচং নার্সারি বাড়ির সাথে পাওয়ানা টাকার জেরধরে হুমায়ুন ও তার পরিবারকে নির্মমভাবে আহত

আপডেট সময় : ১০:২৫:০০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ৩ নভেম্বর ২০২৩

ভোলাচং নার্সারি বাড়ির সাথে পাওয়ানা টাকার জেরধরে হুমায়ুন ও তার পরিবারকে নির্মমভাবে আহত
হেলাল উদ্দিন নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি
ব্রাহ্মণবাড়িয়া নবীনগর পৌর ভোলাচং নার্সারীর সাথে হুমায়ুনের বাড়ি, পিতা ফিরোজ মিয়া, হুমায়ুন মিয়া অভিযোগ করেছেন ।নবীনগরে পৌর কাজিমাবাদ ( সালকান্দি) মোঃ আক্তার মিয়ার কাছ থেকে ২৫০০০০ লক্ষ টাকা লাভের উপরে এনে ছিলেন । সে প্রতি মাসেই লাভের টাকা দিয়ে থাকে ২৫০০ হাজার টাকা করে আক্তার মিয়া কে। কিছুদিন আগে হুমায়ুন বলে আমার কাছে যখন টাকা চাই আমি ৬৯ হাজার টাকা দিয়েছি । গত বুধবার আমার বাড়িতে এসে আমার বোনের কাছে টাকা চাই সব টাকা দেওয়ার জন্য কিন্তু আক্তার মিয়া সে মানে নাই । হুমায়ুন বলে তার কিছু লোকজন নিয়ে আমার বোন আমার বাবা আমার মা আমার ভাইকে মারপিট করে আহত করে চলে যান । লেনদেন চাওয়ার ভিতর আমার পরিবারকে নির্মমভাবে আঘাত করেছেন আক্তার মিয়া। । বর্তমান আমার পরিবার চিকিৎসধীন আছেন । আমি এই ঘটনাকে প্রশাসনের কাছে দৃষ্টি আকর্ষণ করছি আমার এই বিষয়টা দেখার জন্য । আজকে রাত্রে আমার বাড়ি থেকে ইজি বাইক রাতে নিয়ে যাই । হুমায়ূনের পিতা বলেন পাওনা টাকা নিয়ে আমার পরিবারকে আক্তার মিয়া এভাবে মারধোর করবে আমার জানা ছিল না । আমি গত মঙ্গলবার গুরু বিক্রি করে যে টাকা আমার কাছে ছিল তারা এই টাকা নিয়ে গেছে। সকলের দাবি তারা নিরীহ বিদায় তাদের উপর অত্যাচার করছেন মোহাম্মদ আক্তার মিয়া । আক্তার বলেন অনেক দিন দরে আমার টাকা চাই তাদের কাছে আমাকে দেইনা তাই আমি গত বুধবার তাদের বাড়ি যাই তখন তাদের সাথে আমার ঝগড়া সৃষ্টি হয়।

Facebook Comments Box