ঢাকা ০১:৫১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

নোয়াখালীর চৌমুহনী বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৭ ইউনিট

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৫৯:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪ ২১ বার পড়া হয়েছে

 

আফছানা আক্তার,
কুমিল্লা, প্রতিনিধি।

নোয়াখালীর অন্যতম প্রধান বাণিজ্যকেন্দ্র চৌমুহনী বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এরই মধ্যে আগুনে ১৭-১৮টি দোকান সম্পূর্ণরূপে পুড়ে গেছে।

রোববার (২১ এপ্রিল) রাত পৌনে ৮টার দিকে চৌমুহনী বাজারের বাদমতলা রোডের মসজিদ মার্কেটে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। রাত ১০টায় পর্যন্ত আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুন নিয়ন্ত্রণে নোয়াখালী বিভিন্ন উপজেলার ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিট কাজ করছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মোতাছিম জানান, রাত পৌনে ৮টার দিকে চৌমুহনী বাজারের বাদমতলা রোডের মসজিদ মার্কেটের ভূঞা হোসিয়ারি কাপড় দোকানে প্রথমে আগুনের সূত্রপাত হয়। মূর্হুতে মধ্যে আগুন চারদিকে তা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলে পানি সঙ্কট ও প্রচুর দোকান থাকায় আগুন নিয়ন্তণে বিঘ্ন ঘটে। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডে প্রায় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। আনুমানিক ১০০টি দোকান আগুনে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

নোয়াখালী ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক ফরিদ আহমেদ বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছি ৩০/৪০টি দোকান আগুনে পুড়ে গেছে। তবে অগ্নিকান্ডের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত শেষে বলা যাবে। আগুন এখনো পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এসেছে। আগুন নিয়ন্ত্রিণে ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিট কাজ করছে।

চৌমুহনী পৌর মেয়র বীর মু্ক্তিযোদ্ধা খালেদ সাইফুল্লাহ, চৌমুহনী সাধারণ ব্যবসায়ী সমিতি নেতৃবৃন্দ আগুন নিয়ন্ত্রণ কাজে সহযোগী করা হয়।

Facebook Comments Box

নোয়াখালীর চৌমুহনী বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকান্ড, নিয়ন্ত্রণে ফায়ার সার্ভিসের ৭ ইউনিট

আপডেট সময় : ০৩:৫৯:০১ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২২ এপ্রিল ২০২৪

 

আফছানা আক্তার,
কুমিল্লা, প্রতিনিধি।

নোয়াখালীর অন্যতম প্রধান বাণিজ্যকেন্দ্র চৌমুহনী বাজারে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের ঘটনা ঘটেছে। এরই মধ্যে আগুনে ১৭-১৮টি দোকান সম্পূর্ণরূপে পুড়ে গেছে।

রোববার (২১ এপ্রিল) রাত পৌনে ৮টার দিকে চৌমুহনী বাজারের বাদমতলা রোডের মসজিদ মার্কেটে এ অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত হয়। রাত ১০টায় পর্যন্ত আগুন পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসে। আগুন নিয়ন্ত্রণে নোয়াখালী বিভিন্ন উপজেলার ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিট কাজ করছে।

স্থানীয় বাসিন্দা মোতাছিম জানান, রাত পৌনে ৮টার দিকে চৌমুহনী বাজারের বাদমতলা রোডের মসজিদ মার্কেটের ভূঞা হোসিয়ারি কাপড় দোকানে প্রথমে আগুনের সূত্রপাত হয়। মূর্হুতে মধ্যে আগুন চারদিকে তা ছড়িয়ে পড়ে। ঘটনাস্থলে পানি সঙ্কট ও প্রচুর দোকান থাকায় আগুন নিয়ন্তণে বিঘ্ন ঘটে। প্রাথমিক ভাবে ধারণা করা হচ্ছে, বৈদ্যুতিক শর্ট সার্কিট থেকে আগুনের সূত্রপাত হয়েছে। অগ্নিকাণ্ডে প্রায় কোটি টাকার ক্ষয়ক্ষতি হতে পারে। আনুমানিক ১০০টি দোকান আগুনে ক্ষয়ক্ষতি হয়েছে।

নোয়াখালী ফায়ার সার্ভিসের সহকারী পরিচালক ফরিদ আহমেদ বলেন, প্রাথমিক ভাবে ধারণা করছি ৩০/৪০টি দোকান আগুনে পুড়ে গেছে। তবে অগ্নিকান্ডের কারণ ও ক্ষয়ক্ষতির পরিমাণ তদন্ত শেষে বলা যাবে। আগুন এখনো পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে এসেছে। আগুন নিয়ন্ত্রিণে ফায়ার সার্ভিসের সাতটি ইউনিট কাজ করছে।

চৌমুহনী পৌর মেয়র বীর মু্ক্তিযোদ্ধা খালেদ সাইফুল্লাহ, চৌমুহনী সাধারণ ব্যবসায়ী সমিতি নেতৃবৃন্দ আগুন নিয়ন্ত্রণ কাজে সহযোগী করা হয়।

Facebook Comments Box