ঢাকা ০৪:০৬ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৮ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ

গরমে কুমিল্লায় এক স্কুলের ৭ শিক্ষার্থী অসুস্থ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:১৫:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪ ২০ বার পড়া হয়েছে

আফছানা আক্তার
কুমিল্লা, প্রতিনিধি

তীব্র গরমে কুমিল্লায় এক স্কুলের ৭ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে অভিভাবকদের ডেকে ওই শিক্ষার্থীদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন শিক্ষকরা। একইসঙ্গে বিদ্যালয়টি ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়। সোমবার দুপুরে মুরাদনগর উপজেলার তায়মোস বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী ফরিদ আহমেদএ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্কুল সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, তীব্র গরমের মধ্যে তায়মোস বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ে সকাল ১০টা থেকে ক্লাস শুরু হয়। বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল কম। কিন্তু বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীরা গরমে হাঁসফাঁস করতে থাকে। একপর্যায়ে ষষ্ঠ শ্রেণির একজন, সপ্তম শ্রেণির একজন, অষ্টম শ্রেণির তিনজন, ও নবম শ্রেণির দুই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাসুদা আক্তার বলেন, ‘ক্লাস চলাকালে কয়েকজন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের অভিভাবককে খবর দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেই। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের সাথে যোগাযোগ করে তৃতীয় ঘণ্টা পর স্কুল ছুটি দেওয়া হয়।’

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী ফরিদ আহমেদ বলেন, ‘তায়মোস বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ে গরমের কারণে শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়ার বিষয়টি প্রধান শিক্ষকের মাধ্যমে জেনেছি। ছুটি দিয়ে দেওয়ার জন্য বলেছি। আর কোথাও কোনো শিক্ষার্থী অসুস্থ হওয়ার খবর পাইনি।’

Facebook Comments Box

গরমে কুমিল্লায় এক স্কুলের ৭ শিক্ষার্থী অসুস্থ

আপডেট সময় : ০৩:১৫:৫৫ অপরাহ্ন, সোমবার, ২৯ এপ্রিল ২০২৪

আফছানা আক্তার
কুমিল্লা, প্রতিনিধি

তীব্র গরমে কুমিল্লায় এক স্কুলের ৭ শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে। পরে অভিভাবকদের ডেকে ওই শিক্ষার্থীদের বাড়িতে পাঠিয়ে দেন শিক্ষকরা। একইসঙ্গে বিদ্যালয়টি ছুটি দিয়ে দেওয়া হয়। সোমবার দুপুরে মুরাদনগর উপজেলার তায়মোস বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ে এ ঘটনা ঘটে। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী ফরিদ আহমেদএ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

স্কুল সংশ্লিষ্ট সূত্র জানায়, তীব্র গরমের মধ্যে তায়মোস বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ে সকাল ১০টা থেকে ক্লাস শুরু হয়। বিদ্যালয়ে শিক্ষার্থীদের উপস্থিতি ছিল কম। কিন্তু বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে শিক্ষার্থীরা গরমে হাঁসফাঁস করতে থাকে। একপর্যায়ে ষষ্ঠ শ্রেণির একজন, সপ্তম শ্রেণির একজন, অষ্টম শ্রেণির তিনজন, ও নবম শ্রেণির দুই শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়ে।

বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মাসুদা আক্তার বলেন, ‘ক্লাস চলাকালে কয়েকজন শিক্ষার্থী অসুস্থ হয়ে পড়লে তাদের অভিভাবককে খবর দিয়ে বাড়িতে পাঠিয়ে দেই। মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসারের সাথে যোগাযোগ করে তৃতীয় ঘণ্টা পর স্কুল ছুটি দেওয়া হয়।’

উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কাজী ফরিদ আহমেদ বলেন, ‘তায়মোস বেগম উচ্চ বিদ্যালয়ে গরমের কারণে শিক্ষার্থীরা অসুস্থ হয়ে পড়ার বিষয়টি প্রধান শিক্ষকের মাধ্যমে জেনেছি। ছুটি দিয়ে দেওয়ার জন্য বলেছি। আর কোথাও কোনো শিক্ষার্থী অসুস্থ হওয়ার খবর পাইনি।’

Facebook Comments Box